প্র’স্রাবের সময় ফেনা হলে সা’বধান, জে’নে নিন এটা কোন কোন রোগের আ’লামত!

জীবন বড়ই গোলমেলে। কোন বাঁকে যে মৃ’ত্যু লুকিয়ে, তা বোঝা বেজায় ক’ঠিন কাজ। তাই তো সময় থাকতে শ’রীরের ভাষাকে রপ্ত ক’রতে শিখু’ন। জা’নার চেষ্টা করুন শ’রীরের সেই সব ছোট ছোট লক্ষণকে, যা দেখে সহজেই বোঝা সম্ভব দে’হে কোনও রোগ বাসা বেঁধেছে কিনা। যেমন ধ’রুন প্রস্রাব। ইউরিন দেখে শ’রীরের অন্দরের একাধিক গোপন রদবদল স’ম্পর্কে স্পষ্ট ধারণা করে নেওয়া সম্ভব। শুধু শিখে নিতে হবে শ’রীরের ভাষাটা। তাহলেই কেল্লাফতে! অনেকেরই প্রস্রাব করার সময় ফেনা হয়। কেন এমনটা হয়

এসএসসি-এইচএসসিতে ‘অটোপাস’দেওয়া হবে কিনা,সেই ব্যাপারে যা জানাল বোর্ড চেয়ারম্যান

এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় আর অটোপাস দিতে চাই না। একবার অটোপাস দেয়াতে শিক্ষার্থীদের অনেক সমস্যায় পড়তে হয়েছে। আমরা তাদের আর বিপদে ফেলতে চাই না। পরীক্ষা নিয়েই তাদের রেজাল্ট দিতে চাই। মঙ্গলবার (১৩ এপ্রিল) রাতে করোনাকালীন শিক্ষা ব্যবস্থা নিয়ে আয়োজিত দ্যা ডেইলি ক্যাম্পাসের লাইভ অনুষ্ঠানে এসব কথা জানান আন্তঃশিক্ষা সমন্বয় বোর্ড সাব কমিটির সভাপতি ও ঢাকা শিক্ষা বোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর নেহাল আহমেদ। তিনি বলেন, আমরা অটোপাস দিতে চাই না। শিক্ষার্থীদের পরীক্ষা নিয়েই রেজাল্ট দিতে চাই। আমাদের

আবারও চালু হচ্ছে ‘করো’না বুলেটিন’

করোনা সংক্রমণে মানুষের মৃ’ত্যু বৃদ্ধি পাওয়ায় স্বাস্থ্য অধিদপ্তর গণমাধ্যম ও জনগণের কাছে সঠিক তথ্য জানাতে ‘করো’না বুলেটিন’ চালু করেছিল। পরবর্তীতে করো’না শনাক্ত ও মৃ’ত্যু কমতে থাকায় ‘করো’না বুলেটিন’ বন্ধ করে দেয়। চলতি মাসে ফের করো’না শনাক্ত ও মৃ’ত্যু বৃদ্ধি পাওয়ায় ‘করো’না বুলেটিন’ চালু করতে যাচ্ছে স্বাস্থ্য অধিদপ্তর। সপ্তাহে দু’দিন সরাসরি প্রচার হবে করো’না বুলেটিন। এ দু’দিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের নন-কমিউনিকেবল ডিজিজের (এনসিডিসি) পরিচালক অধ্যাপক ডা. মোহাম্ম’দ রোবেদ আমিন এবং অধিদপ্তরের মুখপাত্র ও রোগতত্ত্ব বিভাগের পরিচালক অধ্যাপক