আমি আমার প্রাপ্তিটুকু পেয়ে গেছি: দীঘি

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে নিয়ে বায়োপিক নির্মাণ করছেন ভারতের গুণী চলচ্চিত্র পরিচালক শ্যাম বানেগাল। এই বায়োপিকে বঙ্গবন্ধু’র সহধর্মিনী বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের চরিত্রের অভিনয় করছেন প্রার্থনা ফারদিন দীঘি। এরইমধ্যে দ্বিতীয় লটের শুটিং-এ অংশ নিতে গেলো ২৫ মার্চ মুম্বাইয়ের দাদাসাহেব ফালকে ফিল্ম সিটিতে গিয়েছেন দীঘি। সেখানে টানা বেশ কয়েকদিন কাজ করেছেন তিনি। কিন্তু এখন করোনার কারণে দেশে ফেরার টিকেট পাচ্ছেন না বিধায় ফেরা হচ্ছেনা দীঘির।

মুঠোফোনে মুম্বাই থেকে দীঘি তার অনুভূতি প্রকাশ করতে গিয়ে বলেন, ‘আমার এখনো বিশ্বাস হচ্ছেনা যে আমার মতো এতো ছোট্ট একজন মানুষ বায়োপিক-এ শ্রদ্ধেয় বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিবের চরিত্রে অভিনয় করছি। আমি এখনো নিজেই নিজেকে চিমটি কেটে দেখি এটা সত্যি কী না। এতো বড় মহান একজন মানুষের চরিত্রে অভিনয়ের সুযোগ পাওয়া যেমন সত্যিই সৌভাগ্যের বিষয়, আরো অনেক বেশি চ্যালেঞ্জেরও বটে সেই চরিত্রে অভিনয় করা।

তবে এটা অনেক বড় সত্যি কথা যে শ্রদ্ধেয় শ্যাম বানেগাল স্যার প্রত্যেকটি দৃশ্যে অভিনয়ের পূর্বে আমাকে যেভাবে বুঝিয়ে দিয়েছেন এবং অভিনয় করার পর তিনি আমার অভিনয়ের প্রশংসা করেছেন, এরপর আর কীইবা প্রাপ্তি হতে পারে।

বায়োপিকটি সবার দেখার আগে আমি আমার প্রাপ্তিটুকু পেয়ে গেছিই বলে মনে হয়। অনেক অনেক ধন্যবাদ, কৃতজ্ঞতা আরিফিন শুভ ভাইয়ার প্রতি, কারণ তিনিই মূলত আমার প্রধান সহশিল্পী যেহেতু তিনিই বঙ্গবন্ধুর চরিত্রটিতে অভিনয় করছেন। প্রত্যেকটি দৃশ্যে তিনি আমাকে ভীষণ সহযোগিতা করছেন। সহশিল্পীর কাছ থেকে সহযোগিতা পাওয়াটা সবচেয়ে বেশি জরুরী। ক্যামেরার সামনে অভিনয় করার পূর্বে একদম রিল্যাক্স করে দিচ্ছেন পরিচালক এবং আমার সহশিল্পী। এটা অভিনয়ের জন্য অনেক বেশি জরুরী ছিলো। ধন্যবাদ পুরো ইউনিটকে আমাকে ভালোবাসা দিয়ে আগলে রাখার জন্য।’

এদিকে গেলো শুক্রবার দীঘি অভিনীত ‘টুঙ্গি পাড়ার মিয়া ভাই’ সিনেমাটি মুক্তি পেয়েছে। এই সিনেমাতেও দীঘি অভিনয় করেছেন ফজিলাতুন্নেসা মুজিব চরিত্রে। তবে বায়োপিকে ফজিলাতুন্নেসা মুজিব চরিত্রের গুরুত্ব দীঘির কাছে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ। দীঘি এরইমধ্যে শেষ করেছেন সুমন ধরের ‘চিঠি’র কাজ। এতে তার বিপরীতে আছেন ইয়াশ রোহান। দীঘি অভিনীত প্রথম মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমা দেলোয়ার জাহান ঝন্টু পরিচালিত ‘তুমি আছো তুমি নেই’।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *